ঝালকাঠির রাজাপুরে তুচ্ছ ঘটনায় শিক্ষকের হাতে শিক্ষক লাঞ্চিত - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Friday, October 19, 2018

ঝালকাঠির রাজাপুরে তুচ্ছ ঘটনায় শিক্ষকের হাতে শিক্ষক লাঞ্চিত

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহকারি শিক্ষক মোঃ রিয়াজ হোসেন (৩৩) কে  লাঞ্চিত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে রাজাপুর থানায় রিয়াজ হোসেন সাধারন ডায়রি করেছেন। অফিস সূত্রে জানাগেছে, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে অফিস সহকারি না থাকায় শিক্ষা কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ আলমগীরের নির্দেশে মোঃ রিয়াজ হোসেন শিক্ষকদের বেতন বিলসহ অফিসের যাবতীয় কাজে সহায়তা করে আসছিলেন। রিয়াজ হোসেন উপজেলার সাতুরিয়া এলাকার মোঃ হানিফ খলিফার ছেলে ও ২নং দক্ষিন সাতুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক। ৯৬ নং মধ্য ফুলহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোঃ আবুল হাসানাত তার কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকার কারনে ও প্রধান শিক্ষকের প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তার (মোঃ আবুল হাসানাত ) বিল না করায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় এবং রিয়াজকে খুন জখম করার সুযোগ খুজতে থাকে। ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১ টায় উপজেলা সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আছাদুজ্জামান এর কক্ষে প্রবেশ করার সময় আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা আবুল হাসানাত (৪৫) ও তার শ্যালক জামাল হোসেন (৪০) নিয়ে সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তার উপস্থিতিতেই রিয়াজের উপর অতর্কিত আক্রমন চালায়। উপস্থিত শিক্ষক লুৎফর রহমান রিয়াজকে তাদের হাতথেকে রক্ষা করতে আপ্রান চেষ্টা চালালেও বিবাদীদ্বয় কক্ষের চেয়ার উঠাইয়া রিয়াজকে এলোপাথারী পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফুলা জখম করে। এসময় রিয়াজের শার্টের পকেটে থাকা ১১হাজার ২শত টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং রিয়াজকে আটক করে রাখে। পরে রিয়াজ হোসেন সেখান থেকে মোটরসাইকেল যোগে পালিয়ে জীবন বাঁচায়। আবুল হাসানাত উপজেলার বড়কৈবর্তখালী এলাকার মৃত আঃ আজিজ গাজীর ছেলে ও ৯৬ নং মধ্য ফুলহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এবং জামাল মৃত আঃ ছত্তার হাওলাদারের ছেলে ও ৯৪ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক। এ ব্যাপারে আহত রিয়াজ হোসেন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, টিও স্যারের নির্দেশে আবুল হাসানাতের বিল সিট তৈরি না করায় তার শালকে নিয়ে আমার উপর হামলা চালায়। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মোঃ আবুল হাসানাত এর কাছে জানতে চাউলে তিনি সম্পূর্ন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন এ রকম কোন ঘটনাই ঘটেনি। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ আলমগীর এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ঘটনার সময় ঘটনা স্থলে আমি উপস্থিত ছিলাম না। পরে ঘটনাটি শুনে আমাকে ও নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দেয়ার জন্য রিয়াজকে বলেছি।

Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages