জেলার ১৭৩টি মন্ডপে দূর্গাপূজা..... -------------- ঝালকাঠি জেলা জুড়ে শারদীয় দূর্গা উৎসব শুরু - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Wednesday, October 17, 2018

জেলার ১৭৩টি মন্ডপে দূর্গাপূজা..... -------------- ঝালকাঠি জেলা জুড়ে শারদীয় দূর্গা উৎসব শুরু

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠিতে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা শুরু হয়েছে। সোমবার ষষ্ঠীপুজার মধ্য দিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী দুর্গোৎসব শুরু হল। এ বছর জেলার ৩২ ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় মোট ১৭৩টি মন্ডপে এপূজা অনুষ্ঠিত হবে। হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান এ শারদীয় দুর্গাউৎসবকে কেন্দ্র করে জেলা জুড়ে উৎসবের আমেজ বইছে। এর মধ্যে ঝালকাঠি কেন্দ্রীয় কালিবাড়ি মন্দিরে কালি দুর্গা পূজায় ১০০ বছর পূর্তি হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে মন্দির পক্ষ থেকে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে শহর প্রদিক্ষন করেন ভক্তরা।
কেন্দ্রীয় কালিবাড়ি মন্দিরের সাধারন সম্পাদক সাবেক পৌর কাউন্সিলর প্রনভ কুমার নাথ ভানু বলেন, আমাদের এই মন্দিরে দূর্গা পূজার ১০০ তম বছর পার করেছি। শততম বছর পুর্তিতে এ পূজায় আমাদের বাড়তি প্রস্তুতি রয়েছে। আইনশৃংখলা বাহীনির সাথে আমাদের মন্দিরের ৩৫ জন সেচ্ছাসেবী পূজোয় আসা ভক্ত ও দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা দিবেন।
এই মন্দিরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ঝালকাঠি পুলিশ সুপার মোঃ জোবায়েদুর রহমান জানান, দূর্গা পূজাকে সার্বজনীন করতে সকল প্রকার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নির্ভিগ্নে যাতে পূজা আর্চনা করতে পারে এ জন্য পুলিশ-আনসার সমন্বয়ে ১২ সদস্যের একটি টিম প্রস্তুত রয়েছে। শহরের প্রতিটি পূজা মন্ডপ ও তার আশেপাশের নিরাপত্তার জন্য সিসি ক্যামেরা দ্বারা সর্বক্ষনিক পর্যবেক্ষনে রাখা হবে।
জেলার রাজাপুর উপজেলা সদরের তিনটি মন্দিরে পুজার দায়িত্বে থাকা পুরোহিত শৈলেন্দ্র নারায়ন চক্রবর্তী বলেন, ‘এ বছর দেবীর আগমন ঘটবে ঘোড়ায় চড়ে এবং বিদায় নেবে দোলায় চেপে। পুঞ্জিকা মতে ঘোড়ায় আগমন অর্থাৎ ‘ছত্রভঙ্গ’ এবং দোলায় বিদায় মানে ‘হতাহত’। আশাকরি অসুভ ছত্রভঙ্গ হবে এবং এর বিনাস ঘটবে।’
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর তরন কর্মকার জানান, ‘পুজার সব আয়োজন শেষ হয়েছে। পুজা নির্বিঘœ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া ভক্তদের নিরাপত্তার জন্য প্রতিটি মন্ডপে নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক দল থাকবে।’
 এবছর সদর উপজেলায ৭৩টি, কাঠালিয়ায় ৫৭টি, নলছিটি ২২টি এবং রাজাপুরে ২১টি মন্ডপে পূজা অর্চনা হবে। জেলার মধ্যে এ বছর সবচেয়ে কালিবাড়ি ও আখড়াবাড়ি মন্দিরে বড় বাজেটের মন্ডপ তৈরী হয়েছে।
ঝালকাঠি পুলিশ সুপার মোঃ জোবায়েদুর রহমান আরো জানান, ‘জেলার ১৭৩টি পুজা মন্ডপে ইতোমধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পৌঁছে গেছে। প্রতিমা বিসর্জনের শেষ পর্যন্ত প্রতিটি মন্ডপের নিরাপত্তায় আমাদের পুলিশ সদস্যসহ আইন শৃংখলা বাহিনী থাকবে।’
Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages