পুলিশ জনগনের বন্ধু"কথায় নয় কাজে দেখাচ্ছে রাজাপুর থানা! - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Sunday, July 22, 2018

পুলিশ জনগনের বন্ধু"কথায় নয় কাজে দেখাচ্ছে রাজাপুর থানা!

www.samobad.com :: সমবাদ ডট কম ॥      এম খাইরুল ইসলাম পলাশ,নিজস্ব প্রতিবেদক: পুলিশ নামটা শুনলেই সাধারণ মানুষেরে মধ্যে একটা বাজে মন্তব্য চলে আসে। আবার অনেকে বড় ধরনের জামেলায় পরেও পুলিশের শরনাপন্য হতে চায়না কারন থানা পুলিশ করলে অর্থ ছাড়া সেবা মিলবে না । তবে এই কথা গুলোর অনেক মিল পাওয়া যায় চারপাশে। ইচ্ছে করলেই বাংলাদেশ পুলিশের  মধ্যে সামান্য কিছু বিপদগামী পুলিশ সদস্য মুহুর্তের মধ্যে পরিবর্তন আনতে পারে ওই ধরনের হীন মন মানুষিকতার।বর্তমানে অনেক পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে পুলিশের মধ্যে। তারা অনেক অসাধ্য বিষয় অর্থ ছাড়াই সাধন করে দেখাচ্ছে। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আরেফিন রাজাপুরে যোগদান করার পর থেকেই সাধারণ জনগনের মুখে শোনা  যায় তার গুনের কথা। গরীব,দুঃখী,বৃদ্ধ সবার সাথে হাসি দিয়ে কথা বলে তাদের মন জয় করেছেন। সাধারণ জনগনকে কোন বিষয়ে পরামার্শ দিয়ে,পেশাদার ডাকাত কে আলোর পথে ফিরিয়ে এনে নিজের অর্থ দিয়ে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেয়া, কোন মামলায় বানিজ্য না করে তদন্ত করে সঠিক সমাধান করা, মাদক নিয়ন্ত্রন সহ আরো অনেক সামাজিক কাজ করে জনসাধারণ কে সেবা দিয়ে সবার মন থেকে পুলিশের উপর থাকা বাজে ধারনাকে পাল্টে দিচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তার একঝাক সাহসী অফিসার বৃন্দও মানুষের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালাচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় রাজাপুর থানা পুলিশের এসআই আবু-হানিফ এবং এএসআই মাকসুদুর রহমান গত ২বছর ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধের সমাধান করে দিয়েছেন মাত্র ১ ঘন্টায়।
উপজেলার বাঘড়ী এলাকার মহিলা কলেজ গেট সংলগ্ন হাফেজ আব্দুল সোবাহানের সাথে জমিজমা নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির কারনে মৃত্যু বজলুর রহমানের স্ত্রী রেখা বেগমের সাধে দীর্ঘ ২বছর ধরে ঝগড়া বিবাধ লেগেই থাকতো। চলতো মামলা মোকদ্দমা, কোন সালিশ বৈঠকে হয়নি তার সঠিক সমাধান। গত ০৮জুলাই হাফেজ আব্দুল সোবাহান আদালতে ১৪৪/১৪৫ ধারায় মোকদ্দমা দায়ের করেন। সেই মোকদ্দমার তদন্তবার রাজাপুর থানার এসআই আবু হানিফ,র উপর ন্যাস্ত হয়। এসআই আবু হানিফ নোটিশ জারি করে এবং তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দেন।তাদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা অব্যাহত রাখেন। তিনি কোন প্রকার অর্থের লোভ না করে তার সাথে এএসআই মাকসুদুর রহমান,সার্ভেয়ার ও স্থানীয়দের নিয়ে বাদী,বিবাদী উভয় পক্ষের সামনে ২০জুলাই নিজ হাতে জমি মেপে সীমানা নির্ধারন করে দীর্ঘ দিনের বিরোধের সমাধান করেছেন। তার এই কর্মদক্ষতা দেখে এলাকার জনসাধারন রাজাপুর থানা পুলিশ কে সাধুবাদ জানিয়েছেন।বাদী ও বিবাধী গন এসআই আবু হানিফ এবং এএসআই মাকসুদুর রহমান কে ধন্যবাদ জনিয়ে বলেন সকল পুলিশ’রা যদি আপনাদের মত সকল প্রকার লোভ লালশার উর্ধে থেকে কাজ করত তাহলে তারাও সকল প্রকার সম্যাসার সমাধান করতে পারতেন তাহলেই পুলিশ জনগনের বন্ধু"কথায় নয় কাজে দেখা যেতো।

Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages