রাজাপুরে পুলিশের সামনে শিক্ষক কতৃক শিক্ষকের উপর হামলার অভিযোগ। - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Sunday, December 24, 2017

রাজাপুরে পুলিশের সামনে শিক্ষক কতৃক শিক্ষকের উপর হামলার অভিযোগ।

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার কানুদাসকাঠি এলাকায় থানা পুলিশের সামনে বসে শিক্ষক কতৃক শিক্ষকের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে
পূর্ব কানুদাসকাঠি আদার্শ নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রয়োজনীয় মুল্যবান কাগজপত্র, রেজিস্টার খাতা, ছাত্র ছাত্রীদের সার্টিফিকেট ফাইল , খাতা পত্র ফাইল ইত্যাদি সাবেক প্রধান শিক্ষক মো: আউয়াল নিয়ে তার বসত ঘরে আটকে রাখে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ( ভারপ্রাপ্ত) কে বাদ দিয়ে বিদ্যালয়ের সভাপতি এম.. মান্নান  সাবেক প্রধান শিক্ষকের ভাই হওয়ায় নতুন প্রধান শিক্ষক নিয়োগের অবৈধ চেষ্টা করে                 
তাই নিরুপায় হইয়া বর্তমান প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুস ছালাম হাং মোকাম ঝালকাঠি বিজ্ঞ ম্যাজিস্টেট সাহেবের আদালতে বিদ্যালয়ের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাবেক প্রধান শিক্ষক মো: আউয়াল এর ঘর থেকে উদ্ধারের জন্য অভিযোগ প্রধান করেন অভিযোগের ভিত্তিতে বিজ্ঞ আদালত সাবেক প্রধান শিক্ষকের বাড়ীতে তল্লাশি করার জন্য রাজাপুর থানাকে নির্দেশ প্রধান করেন নির্দেশ পেয়ে রাজাপুর থানা এস আই ফিরোজ আলমকে বিষয়টি দেখার দ্বায়িত্ব দেন
এস আই ফিরোজ তার সঙ্গীয় ফোর্স সহ ২০ই ডিসেম্বর বেলা টায়  প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উদ্ধারের জন্য সাবেক প্রধান শিক্ষক মো: আউয়াল এর বাড়িতে যান এবং তল্লাশি  শুরু করেন সে সময় আমি (আব্দুস ছালাম হাং) রাস্তায় দাড়িয়ে থাকি হঠাৎ দেখি :বারেক,:আউয়াল, পূর্ব কানুদাসকাঠি প্রতিবন্ধি বিদ্যালযের প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামান রেন্টু, জিয়াউল হাসান সহ আরো অনেকে আমার উপর আত্রুামনের জন্য এগিয়ে আসে সে সময় আমি প্রান ভয়ে পালানোর চেষ্টা করলে পিছনথেকে আমাকে আগাত করে তাতে আমার  ডান কান কেটে যায় তখন আমাকে এস আই ফিরোজ উদ্ধার করে এবং পুলিশের সামনে বসে আমাকে মারার জন্য পূর্ব কানুদাসকাঠি প্রতিবন্ধি বিদ্যালযের প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামান রেন্টুকে গ্রেফতার করে
উক্ত বিষয়ে আমি থানায় অভিযোগ দিতে চাইলে বিবাধীরা মিমাংসার জন্য অনেক অনুরোধ করে আমাকে বিদ্যালয়ের প্রযোজনীয় কাগজপত্র ফেরৎ দেবে এবং মারামারির ঘটনার সঠিক বিচার করবেন বলে আশ্বাস দিয়ে কামরুজ্জামানকে  থানা থেকে বিদ্যালয়ের সভাপতি এস মান্নান এর জিম্মায় ছাড়িয়ে নেনছাড়িয়ে নেয়ার পর আর কোনো সমাধানে তারা এখোনো আসেনি
বিষয়ে রাজাপুর থানার এস আই ফিরোজ আলম জানান, তল্লাশি করার সময় আমার সামনে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে এতে আব্দুস ছালাম আহত  হয় আমি ছালামকে আগাত করার জন্য কামরুজ্জামন রেন্টুকে গ্রেফতার করি এবং আব্দুস ছালামকে মামলা করতে বলি কিন্তু আব্দুস ছালাম মামলা না করে সমাধানে যায় তার সকল কাগজপত্র ফিরিয়েদেবে সেই শর্তে পতিপক্ষরা আমার কাছে সকল কাগজ জমা দিয়েছে যে কোন সময় আব্দুস ছালাম কাগজপত্র বুজে নেয়ার জন্য বসলেই হয়



                                        
Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages