রাজাপুরে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতির বিরুদ্ধে ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ! - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Sunday, April 09, 2017

রাজাপুরে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতির বিরুদ্ধে ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ!

www.samobad.com :: সমবাদ ডট কম ॥

খায়রুল ইসলাম পলাশ,নিজস্ব প্রতিবেদক: ঝালকাঠির রাজাপুরে সদ্য প্রতিষ্ঠিত বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতির বিরুদ্ধে ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে ওই বিদ্যালয়ে ০৯ এপ্রিল রোববার সকাল ১১টায় ভুক্তভোগীরা বিদ্যালয়ের জমিদাতা  মোঃ শাহজাহান তালুকদার সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যের মাধ্যমে এই অভিযোগ করেন অভিযুক্ত মিরাজ খাঁন একজন মানবাধিকার কর্মী উপজেলার আঙ্গারিয়া গ্রামের শাহ্ আলম খাঁনের ছেলে  
সদ্য প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টিতে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মিরাজ খাঁন ছয় জনের কাছ থেকে ৫লাখ ৮০হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন                                                                                                     ভুক্তভোগীরা জানায়, মোঃ নাসির উদ্দিন সহকারী প্রধান শিক্ষক পদের জন্য একলাখ, সহকারী শিক্ষিকা আসমা আক্তারের একলাখ, লুবনা আক্তার এর ১লাখ ৫০হাজার, আল-আমীন এর ১লাখ ৩০ হাজার ভ্যান চালক এর জন্য শহিদুল ইসলামের ৫০ হাজার শাহ্ জালাল এর থেকে ৫০ হাজার মোট পাঁচলাখ আশি হাজার টাকা বিদ্যালয়টিতে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে হাতিয়ে নেয় মিরাজ খাঁন বিদ্যালয়ের নিয়োগ পত্রের ভুয়া কাগজ তৈরী করে নিয়োগদেয়া  প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেয়া হয় বলেও ভুক্তভোগীর জানায়তবে ভুক্তভোগীদের কাছে নিয়োগ পত্র ছাড়া টাকা দেয়ার কোন উপযুক্ত কোন প্রমান পাওয়া যায়নি  বিষয়ে ভুক্তভোগীরা বলেন আমরা নিয়োগপত্র হাতে পেয়ে মিরাজ খাঁনের হাতে টাকা দিয়েছি
সরেজমিনে গিয়ে রোববার দেখাযায়, বিদ্যালয়টি বর্তমানে শতাধিক প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর জন্য আটজন শিক্ষক রয়েছে প্রতিদিন বিদ্যালয়টিতে পাঠদান হলেও বিদ্যালয়টি এখনো অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে 
বিদ্যালয়ের জমিদাতা মোঃ শাহ্ জাহান তালুকদার জানায়, আমার দেয়া ১৬ শতাংশ জমির উপর বর্তমানে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় পরিচালনা করতে উক্ত জেলার একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার সহযোগীতা ছাড়পত্র থাকার কথা রয়েছে কিন্তু মিরাজ খাঁন ভোলা জেলার অগ্রদূত সংস্থা নামের একটি এনজিওর ভুয়া সনদ ব্যবহার করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি এছাড়াও ভুয়া সিল মোহর ব্যবহার সহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন মোঃ শাহ্ জাহান তালুকদার মিরাজ খাঁনের বিরুদ্ধে
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মিরাজ খাঁন মুঠোফোনে বলেন, আমি বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কিন্তু একটি কুচক্রীমহল আমাকে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদ থেকে বাদ দিতে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে আমি কারো কাছ থেকে কোনো টাকা নেই নি এবং ধরনের কোন প্রমান কারো কাছে নাইএবং 
আমার বিরুদ্ধে যারা ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ এনেছে তারাই এই ঘুষ বানিজ্যের সাথে জড়িততাদের সাথে আমার কোন রফাদফা হয়নায় বিধায় আমার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ এনেছে ওই মহলটি
                                                                                                             

No comments:

Post Bottom Ad

Pages