বিশ্বাস ও মানবিকতার ফল ! প্রতারক বেল্লালের পরিচয় মিলেছে - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Monday, September 05, 2016

বিশ্বাস ও মানবিকতার ফল ! প্রতারক বেল্লালের পরিচয় মিলেছে


www.samobad.com :: সমবাদ ডট কম ॥ অহিদ সাইফুল,রাজাপুরঃ গত দুইদিন আগে ঝালকাঠির রাজাপুরে আশা বেলালের প্রকৃত পরিচয় পাওয়া গেছে। সে একজন প্রতারক। সে মানুষের মানবিকতার সুযোগ নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবত প্রতারনা করে আসছে। তার বর্তমান ঠিকানা-চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার (গুলকবাহার)চক বাজারে। তার বাবার নাম জসিম উদ্দিন ও মা সেলিনা আক্তার।স্থায়ী ঠিকানাঃ- গ্রাম বনগাঁও,পোঃ জানাউড়া, থানাঃ শ্রীমঙ্গল, জেলা মৌলভী বাজার।
যে ভাবে জানাগেল তার প্রকৃত পরিচয়ঃ গতদিন বাংলাদেশের সকল জাতীয় সংবাদপত্র ও অনলাইন পত্রিকায় বেলালকে নিয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয় তা নজরে আসে খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলার শাহজাহান কবির সাজু নামে একজন সাংবাদিকের। তিনি সোমবার সকালে রাজাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  শেখ মুনীর উল গীয়াসকে মুঠোফেনের মাধ্যমে জানান, গত দেড় বছর আগে একই চেহারর ও একই নামের একটি ছেলে পানছড়ি উপজেলায় বিজিবি সদস্যদের হেফাজতে আসে। তখন সে নিজের নাম বেল্লাল বাবা জসিম উদ্দিন ও মা সেলিনা আক্তার এবং ঠিকানা ব্রাক্ষনবাড়িয়া বলে জানায়। এরপর পানছড়ি উপজেলার বাহার মিয়া নামে এক আওয়ামীলীগ নেতা বেল্লালকে তার বাড়ীতে নিয়ে যায়। সেখানে বেল্লাল প্রায় একমাস অবস্থান করার পরে সে ওই আওয়ামীলীগ নেতার বাড়ী থেকে ষোল হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। সেই সময়ও বেল্লালকে নিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এই খবর রাজাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানার সাথে সাথে রাজাপুরের সাংবাদিকদের অবহিত করেন। এরপর পানছড়ি উপজেলার ওই সাংবাদিকের কাছে দেড় বছর আগের করা পত্রিকার খবর ও ছবি চায় রাজাপুরের সাংবদিকরা। তিনি ই-মেইলের মাধ্যমে ছবি পাঠালে ছবির ছেলেটির সাথে রাজাপুরের বেল্লালের চেহাররা হুবহু মিল পাওয়া যায়। এরপর সাংবাদিকরা বেল্লালকে রাজাপুর থানায় নিয়ে আসলে রাজাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মুনীর উল গীয়াস ও (ওসি) তদন্ত হারুন অর রশিদ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। জিজ্ঞাসাবাদে বেল্লাল তার প্রতারনার কথা স্বীকার করে।
রাজাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মুনীর উল গীয়াস জানান,বেল্লাল এখন আমাদের হেফাজতে রয়েছে। তার প্রতারনার বিষয়ে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। এখন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

No comments:

Post Bottom Ad

Pages