ঝালকাঠির রাজাপুরে উপজেলা যুব মহিলা লীগের সম্মেলনে পদ নিয়ে তোলপার আহত -১০ - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Tuesday, April 12, 2016

ঝালকাঠির রাজাপুরে উপজেলা যুব মহিলা লীগের সম্মেলনে পদ নিয়ে তোলপার আহত -১০

www.samobad.com :: সমবাদ ডট কম,বার্তা ডেস্কঃ ॥ এম খায়রুল ইসলাম পলাশ,রাজাপুরঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে উপজেলা যুব মহিলা লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। সংঘর্ষ ও পুলিশের লাঠিচার্জে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিকেলে মহিলা যুব লীগের সম্মেলন শুরুহয়। সম্মেলনের প্রথমার্ধে জেলা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেন। পরে সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্ব শুরুহয়। এসময় বরিশাল বিভাগীয় যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শারমীন মৌসুমি কেকা রাজাপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবে নাছরিন সুলতানা মুন্নির নাম ঘোষণা করেন। ঘোষণার সাথে সাথেই সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী নাজনিন পাখি ও তার সমর্থকরা হইচই শুরুকরে। এক পর্যায়ে তারা কমিটি মানিনা বলে স্লোগান দেয়। এ সময় নাছরিন সুলতানা মুন্নির ও নাজনিন পাখির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। পাখির সমর্থকরা অডিটরিয়ামের ভেতরের চেয়ার ও টেবিল ভাংচুর করে। এ অবস্থায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে। সংঘর্ষ ও লাঠিচার্জে নব নির্বাচিত যুব মহিলালীগ সভাপতি মুন্নি আক্তারসহ অন্তত ১০জন কর্মী-সমর্থক আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নাজনীন পাখিকে আটক করে। আটকের পূর্বে নাজনিন পাখি সাংবাদিকদের বলেন, তৃণমূলের মতামত না নিয়েই মুন্নি আক্তারকে সভানেত্রী ঘোষণা করা হয়। এটা আমার সমর্থকরা মেনে নিতে পারেনি। তারা এর প্রতিবাদ করলে মুন্নি আক্তারের লোকজন আমাদের ওপর হামলা করে। মুন্নি আক্তার বলেন, দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমার নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নাজনিন পাখি ও তার সমর্থকরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। অডিটরিয়ামের মধ্যে থাকা টেবিল চেয়ার ভাংচুর করে। যারা দলের সিদ্ধান্ত মানেনা, তাদের বিরুদ্ধে দলের নীতি  নির্ধারকরাই সিদ্ধান্ত নেবে।
ঝালকাঠি মহিলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক শারমিন মৌসুমি কেকা বলেন, সম্মেলনে উপস্থিত মহিলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মতামতের ভিত্তিতেই কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। সভানেত্রীর নাম ঘোষণা করার সাথে সাথেই প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী নাজনিন পাখি ও তার সমর্থক কয়েকজন পুরুষ ভেতরে ঢুকে ভাংচুর শুরু করে। পরে পুলিশ পাখিকে আটক করে।
রাজাপুর থানার ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেন, সম্মেলনে উত্তেজনা ও সংঘর্ষ ঠেকাতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আমরা নাজনিন পাখি নামে মহিলা লীগের একে নত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছি।
উলেখ্য, এ সম্মেলনে স্থানীয় সংসদ সদস্য, জেলা নেতৃবৃন্দের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও কমিটি গঠন করা নিয়ে আগে থেকেই উত্তেজনা দেখা দেয়ায় তারা উপস্থিত হননি।



    এম খায়রুল ইসলাম পলাশ
    রাজাপুর প্রতিনিধি
Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages