নওগাঁয় অপহরনের ৩৭ দিন পর কুলসুম সহ অপহরনকারী পলিলকে আটক করেছে পুলিশ - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

শিরোনাম

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Saturday, March 19, 2016

নওগাঁয় অপহরনের ৩৭ দিন পর কুলসুম সহ অপহরনকারী পলিলকে আটক করেছে পুলিশ

www.samobad.com :: সমবাদ ডট কম,বার্তা ডেস্কঃ ॥ ব্রেলভীর চৌধুরীনওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ নওগাঁর পত্নীতলায় থানা পুলিশ অপহরনের ৩৭ দিন পর অপহরনকৃত নাবালিকা মেয়ে উম্মে কুলসুম কুশুম সহ অপহরনকারী পলিল খালকোকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার ভোরে নিয়ামতপুর থানার হাজীনগর এলাকা থেকে আটক করেছে

জানাগেছেগত ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ শুক্রবার পত্নীতলা উপজেলার গোপীনগর গ্রামের মিজানুর রহমানের নাবালিকা মেয়ে উম্মে কুলসুম কুশুম (১৩) পত্নীতলা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রাইভেট পড়তে আসলে অপহরনকারী নিয়ামতপুর থানার লক্ষিডাঙ্গা গ্রামের কালা চাঁদের পুত্র পলিল খালকো (২০) তাকে ফুসলিয়ে অপহরন করে নিয়ে যায়। উক্ত উম্মে কুলসুম কুশুম পতœীতলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী। তার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোনে নিয়ামতপুর থানার লক্ষিডাঙ্গা গ্রামের কালা চাঁদের পুত্র পলিল খালকো মুসলমান পরিচয় দিয়ে ফুসলিয়ে প্রেমে আস্বস্থ করে। এরই এক পর্যায় গত ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ শুক্রবার উম্মে কুলসুম কুশুম পতœীতলা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রাইভেট পড়তে আসলে সেখান থেকে পলিল খালকো তাকে ফুসলিয়ে অপহরন করে নিয়ে যায়

অপহরনের পর থেকে উম্মে কুলসুম কুশুম সহ পলিল খালকোর কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিলনা। অনেক খোঁজাখুজির পর মেয়েকে না পেয়ে তার পিতা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে পতœীতলা থানায় একটি মামলা করলে থানা পুলিশ বিভিন্ন ভাবে উম্মে কুলসুমকে উদ্ধারের চেষ্টা করলেও যানাযায় উক্ত পলিল খালকো উম্মে কুলসুমকে ভারতে নিয়ে গেছে

তবে শনিবার ভোর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে উক্ত অপহরকারী পলিল খালকো উম্মে কুলসুমকে সঙ্গে নিয়ে নিয়ামতপুর থানার হাজীনগর এলাকায় অবস্থান করছে। সঙ্গে সঙ্গে পত্নীতলা থানার এসআই শামছ্ সহ সঙ্গিয় ফোর্স শনিবার ভোরে নিয়ামতপুর থানার সহযোগীতায় নিয়ামতপুর থানার হাজীনগর ইউনিয়নের পাতইল গ্রামের সিধুর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে সেখান থেকে উম্মে কুলসুম সহ অপহরনকারী পলিল খালকোকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। 

এব্যাপারে পত্নীতলা থানায় মামলা নং ২তাং ০২/০৩/২০১৬। ধারা ২০০০ সনের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/২০০৩) এর ৭/৩০। 
#########
Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages