পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আরও ১৫৯ বাংলাদেশীকে ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Monday, August 10, 2015

পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আরও ১৫৯ বাংলাদেশীকে ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার

www.samobad.com :: অনলাইন, দৈনিক সমবাদ,প্রতিনিধিঃ ॥ বেশ কয়েক দফা তারিখ পেছানোর পর অবশেষে গতকাল সোমবার দুপুর ১টার দিকে ১৫৯ জন অভিবাসীকে ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার। সাম্প্রতিক সময়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথিমধ্যে মিয়ানমার উপকুলে সেদেশের নৌবাহিনী ভাসমান অবস্থায় দু’দফায় ৯৩৫ জন যাত্রীকে উদ্ধার করে তাদের হেফাজতে নিয়ে যায়। পরে মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) ও বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বিজিবি’র উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের মধ্যে দফায় দফায় পতাকা বৈঠকে এসব উদ্ধার করা অভিবাসীদের যাচাই বাছাই করে বাংলাদেশী নাগরিকদের চিহ্নিত করে ফেরত দিতে সম্মত হলে অভিবাসী ফেরতের কার্যক্রম শুরু হয়। এর আগে ৩ দফায় ৩৪২ জন অভিবাসীকে ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার।
গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় মিয়ানমার সীমান্তের ঢেঁকিবনিয়া বিজিপি ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত পতাকা বৈঠকে সেদেশের ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টের উপপরিচালক সো নাইন এর নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের বিজিপি প্রতিনিধির সমন্বয়ে পতাকা বৈঠকে এদেশের বর্ডার গার্ড কক্সবাজার ১৭ বিজিবির অধিনায়ক মোঃ রবিউল ইসলাম এর নেতৃত্বে ১০ সদস্যের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। ১০টা থেকে প্রায় দুপুর ১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত পতাকা বৈঠকে দু'দেশের সীমান্ত এলাকা নিয়ে পারস্পরিক বন্ধুত্বসূলভ মনোভাব নিয়ে দায়িত্ব পালন করার জন্য উভয়পক্ষ সম্মত হয়। পাশাপাশি চোরাচালান ও অনুপ্রবেশ প্রতিরোধেও বিজিবির পক্ষ থেকে জোরালো দাবি উত্থাপন করা হলে উভয়পক্ষের মধ্যে ফলপ্রসু আলোচনা শেষে ১৫৯ জন অভিবাসীকে সেদেশের বিজিপি বর্ডার গার্ড বিজিবির হাতে হস্তান্তর করেন। পরে বিজিবির প্রহরায় অভিবাসীরা সীমান্তের ঘুমধুম জিরো পয়েন্টের লাল ব্রিজ পার হয়ে তাদের জন্য অপেক্ষমান গাড়িতে উঠানো হয়। সেখান থেকে অভিবাসীদের কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এসব অভিবাসীদের যাচাই বাছাই শেষে জেলা প্রশাসক কক্সবাজার মডেল থানা পুলিশের মাধ্যমে স্ব স্ব এলাকার পরিবারের অথবা অভিবাসীদের আত্মীয় স্বজনের নিকট হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার ১৭ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ রবিউল ইসলাম।
মিয়ানমার থেকে ফেরত আসা ১০ জেলার ১৫৯ জন অভিবাসীর মধ্যে নরসিংদীর ৮০ জন, নারায়ণগঞ্জের ১২ জন, কিশোরগঞ্জের ১৩ জন, ফরিদপুরের ১২ জন, হবিগঞ্জের ১৭ জন, নওগার ২ জন, নাটোরের ১ জন, শরিয়তপুরের ১ জন, বরিশালের ১ জন সহ চট্টগ্রামের ১৮ জন রয়েছে বলে বিজিবি সূত্রে জানা গেছে। অভিবাসী হস্তান্তরকালে উপস্থিত ছিলেন বিজিবির সেক্টর কমান্ডার আনিসুর রহমান, কক্সবাজার ১৭ বিজিবির উপঅধিনায়ক ইমরান উল্লাহ সরকার, কক্সবাজার গোয়েন্দা বিভাগের পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফারুক ছাড়াও জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। এ সময় আইওএম এর কর্মকর্তা আশিক মনির সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত ৫০১ জন বাংলাদেশী অভিবাসীকে ফেরত আনা হয়েছে। আরো ৪ শতাধিক অভিবাসীকে ফেরত নিয়ে আসার কার্যক্রম চলছে।

কায়সার হামিদ মানিক
উখিয়া, কক্সবাজার।

No comments:

Post Bottom Ad

Pages