উখিয়ায় ইয়াবা ও চোলাই মদের রমরমা ব্যবসা - অনলাইন দৈনিক সমবাদ,সত্য সংবাদ প্রকাশে ২৪ঘন্টা,True News publish the 24 hours "Online Daily Samobad"

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Wednesday, August 05, 2015

উখিয়ায় ইয়াবা ও চোলাই মদের রমরমা ব্যবসা

www.samobad.com :: অনলাইন, দৈনিক সমবাদ,প্রতিনিধিঃ ॥ কক্সবাজারের উখিয়ার গ্রামগঞ্জে মরণনেশা ইয়াবা ও চোলাই মদের আগ্রাসন বেড়েই চলছে। সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে পাচার হয়ে আসা ইয়াবা ও বিভিন্ন প্রজাতির বোতল জাত মাদক দ্রব্য লোকালয়ে ছড়িয়ে পড়ার কারণে হাত বাড়ালেই সহজলভ্যে পাওয়া যাচ্ছে ইয়াবা সহ বিভিন্ন প্রকার মাদক দ্রব্য। এসব মাদক দ্রব্য বিক্রি করতে গিয়ে ইয়াবা আসক্ত হয়ে পড়ছে স্কুল, কলেজগামী ছাত্র ও বেকার কিশোর যুবকেরা। ফলে এখানে মাদকাসক্তের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ার ঘটনা নিয়ে অস্বস্তিতে রয়েছে পরিবার পরিজন। পুলিশ বলছে, সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।
উখিয়া সদর ঘিলাতলী পাড়া ঘুরে স্থানীয় গ্রামবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, স্থানীয় একটি বসত বাড়িতে ওপেন সিক্রেট মাদক দ্রব্য বিক্রির ফলে রাতের বেলায় মাদকাসক্তদের মাতলামির কারণে গ্রামের পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে। প্রত্যক্ষদর্শী আবদুল করিম জানায়, মদ্যপায়ী অপ্রাসঙ্গিক আচরণ ও চলাফেরা নিয়ে বাড়ির মেয়েরা সর্বদা আতংকে ভুগছে। গ্রামের সাবেক ইউ,পি, সদস্য ও আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল আলম মেম্বার নুরু এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মাদক দ্রব্য বিক্রি ও সেবনকারীর উৎপাতে গ্রামের পরিবেশ অস্থির হয়ে উঠেছে। সম্প্রতি উখিয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদক বিক্রেতার স্ত্রীকে আটক করে আদালতে পাঠালেও মাদক বিক্রি বন্ধ হয়নি। আইনের ফাক ফোকড় দিয়ে জামিনে মুক্ত হয়ে অভিযুক্তরা ফের মাদক ব্যবসা শুরু করেছে। ঘিলাতলী গ্রামের বাসিন্দা ও সরকারি চাকরীজীবী মোহাম্মদ সেলিম জানায়, মাদকাসক্তরা নেশার টাকা যোগান দেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটি চুরি করে নিয়ে গেছে। একই অভিযোগ করে গ্রামের একাধিক ব্যক্তি জানায়, মাদক বিক্রির কারণে গ্রামে চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে।
রাজাপালং ইউনিয়নের ধইল্যাঘোনা সমাজ সেবা সমবায় সমিতির সভাপতি আবদুল আজিজ ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রফিক অভিযোগ করে জানায়, গ্রামের কতিপয় চিহ্নিত ব্যক্তি ইয়াবার চালান নিয়ে এসে খুচরা বিক্রি করার সুবাদে কিশোর, যুবকেরা ইয়াবা আসক্ত হয়ে পড়ছে। ফলে গ্রামীণ জনপদের আইন শৃঙ্খলার অবনতি হয়ে অস্বস্তিতে ভুগছে পরিবার পরিজন। তারা আরো জানান, ইয়াবা ও নেশার টাকা যোগান দেওয়ার জন্য বসত বাড়ির মূল্যবান মালামাল চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে ছেলেরা। এতে বাধা দিলে পিতামাতার উপর হামলা চালিয়ে মারধর করা হচ্ছে। সমিতির নেতৃবৃন্দরা গ্রামের পরিবেশ সমুন্নত রাখতে ইয়াবা বিক্রি ও সেবনকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। হরিণমারা গ্রামের আমির হোছন, লিয়াকত আলী সহ একাধিক গ্রামবাসী জানায়, গ্রামের ভিতরে মুদির দোকানের আড়ালে ইয়াবা ও চোলাই মদ বিক্রির ফলে গ্রামের সহজ সরল মানুষ নিরাপদে চলাফেরা করতে পারছে না। পাশাপাশি অবাধ মাদক বিক্রি করার ফলে মাদকাসক্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম খান জানান, সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া মাত্রই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জানান, ইতিমধ্যেই পিতামাতার অবাধ্য বেশ কয়েকজন মাদকাসক্ত ছেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

কায়সার হামিদ মানিক
উখিয়া, কক্সবাজার।

No comments:

Post Bottom Ad

Pages